বরাইদ ফয়জিয়া খানকাহ্ শরীফের ২৫তম বার্ষিক আজিমুশশান তরীকত মাহফিল

হাফেজ মাওলানা আবু সাইদ ইমদাদুল্লা বিশেষ প্রতিনিধিঃ ঐতিহ্যবাহী বরাইদ ফয়জিয়া খানকাহ্ শরীফের ২৫তম বার্ষিক আজিমুশশান তরীকত মাহফিল ৯ জানুয়ারি রোজ বৃহস্পতিবার। ভালুকা উপজেলা মেদুয়ারী ইউনিয়নের বরাইদ গ্রামে ঐতিহ্যবাহী ফয়জিয়া খানকাহ্ শরীফ অবস্থিত। জানা যায় ১৯৯৫ সালে উক্ত ফয়জিয়া খানকাহ্ শরীফ প্রতিষ্ঠা করেন বরাইদ গ্রামের কৃতী সন্তান জাতীয় স্বর্ণপদক পরুস্কার প্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ শিক্ষক টাংগাইল দারুল উলুম মাদরাসার প্রধান মুহাদ্দীস ও প্রিন্সিপাল ভালুকা কেন্দ্রীয় বড় মসজিদের পেশ ইমাম ও খতীব পীরে কামেল আলহাজ্ব মাওলানা মুফতি মেহের উদ্দিন সাহেব দাঃবাঃ। যিনি উপমহাদেশের আধ্যাত্মিক সাধক ভারতের বিশ্ব বিখ্যাত দেওবন্দ মাদরাসার প্রখ্যাত আলেম থানবী সিলসিলার প্রবক্তা হযরত মাওলামা আশরাফ আলী থানবী রাহঃ এর সুযোগ্য খলীফা ময়মনসিংহ বড় মসজিদের পেশ ইমাম ও খতিব ফয়জুর রহমান মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পীরে কামেল মরহুম হযরত মাওলানা ফয়জুর রহমান সাহেব রাহঃ এর নিকট সুদীর্ঘ প্রায় ২০ বৎসর আধ্যাত্মিক জ্ঞান গ্রহন করেন। অতপর মরহুম ফয়জুর রহমান সাহেব রাহঃ মুফতি মেহের উদ্দিন সাহেব কে থানবী সিলসিলার খেলাফত দান করেন। মুফতি মেহের উদ্দিন সাহেব দাঃবাঃ খেলাফত প্রাপ্তির পর মানুষের মাঝে কুরআন এবং হাদিসের আলোকে এলমে মারেফাতের শিক্ষা ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যে তিনি তিনার নিজ বাড়িতে ফয়জিয়া খানকাহ্ শরীফ প্রতিষ্ঠা করেন। খানকাহ্ শরীফ প্রতিষ্ঠার পর থেকে সুদীর্ঘ ২৫ বছর যাবত তিনি কুরআন এবং হাদীসের বার্তা মানুষের মাঝে পৌছে দেওয়ার জন্য উক্ত খানকাহ্ শরীফে তিনি প্রতি মাসে মাসিক এসলাহি মাহফিল সহ বাৎসরিক তরীকত মাহ্ফিল করে আসছেন। উক্ত বাৎসরিক এবং মাসিক তরীকত মাহফিলে দেশের খ্যাতিমান আলেমগন বয়ান করে থাকেন এরই ধারাবাহিকতায় এ বছর ভারতের বিশ্ব বিখ্যাত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দ মাদরাসা থেকে আগত আল্লামা মুফতি সোহরাব আলী খান সাহেব দাঃবাঃ সহ দেশের খ্যাতিমান আলেমগন বয়ান করবেন বলে জানাযায়। এবং এসমস্ত ধর্মীয় মাহফিলের দারা তিনি হাজার হাজার ধর্ম প্রাণ মুসলমানদের কে আল্লাহ্ এবং রাসুল সাঃ এর নৈকট্য হাসিলের শিক্ষা দিয়ে আসছেন যাহা এখন পর্যন্ত অব্যাহত আছে।